প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার গ্রহীতাদের তালিকা প্রকাশ করুন!

অনলাইন ডেস্ক অনলাইন ডেস্ক

সৃষ্টিবার্তা ডটকম

প্রকাশিত: মে ১৮, ২০২০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবরই তার চিন্তা চেতনায় আধুনিক। একইসাথে মমতাময়ী এবং বাস্তবতার সাথে তাল মিলিয়ে পদক্ষেপ নিতে পারদর্শী। তার দূরদর্শী ও মমতাময়ীতার আরেকটি উদাহরণ হলো করোনা সঙ্কটে দেশের দরিদ্র শ্রেণির মানুষের জন্য ঈদ উপহার।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দেন দেশের ৫০ লাখ দরিদ্র মানুষ দুই হাজার ৫০০ টাকা করে পাবেন। এটি দেশবাসীর জন্য ঈদ উপহার। আর এ ঈদ উপহার প্রদানের মাধ্যমে লাখো মানুষের দোয়া পেয়েছেন তিনি।

আমাদের দেশ হয়তো ইউরোপ-আমেরিকার মতো উন্নত নয়। তবে আমাদের সাধ্য মতো সহায়তা যাতে জনগণ পায়, সে ব্যবস্থা করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। দুর্যোগের এই ক্রান্তিকালে তিনি যে পদক্ষেপ নিয়েছেন তা যেমন প্রশংসনীয়, তেমনি তার মানবিক মনের পরিচয়।

তবে এই ঈদ বোনাস বিতরণে যেনো স্বচ্ছতা থাকে সেটি নিশ্চিত করতে হবে। এ টাকা বিতরণে যাতে কোনো অনিয়ম বা দুর্নীতি না হয় সেদিকে কঠোর দৃষ্টি রাখতে হবে।

করোনার ভয়াবহতার মধ্যেও এর আগে সরকারের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির চাল নিয়ে চালবাজী করেছেন অনেক জনপ্রতিনিধি। এতে তদন্তের মাধ্যমে তাদেরকে দণ্ডিত করা হয়েছে। অনেকেই দল থেকে বহিষ্কৃত হয়েছেন।

ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর এ ঈদ উপহার নিয়ে হবিগঞ্জে নিজের ৩৯ জন আত্মীয়ের নাম তালিকায় ওঠানোর অভিযোগ উঠেছে এক ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বারের বিরুদ্ধে। তিনি নিজের ফোন নম্বরও ব্যবহার করেছেন বিভিন্ন নামের পাশে। এটি কাম্য নয়।

এমন কিছু অসাধু জনপ্রতিনিধির জন্য সরকারকে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। তাই সরকারি যেকোনো সহায়তা যাতে যথাযথভাবে প্রকৃত প্রাপক পান তার ব্যবস্থা করতে হবে।

এমন পরিস্থিতিতে যদি প্রতিটি এলাকায় কারা টাকা পেয়েছেন তাদের নাম ও ফোন নাম্বারসহ প্রতিটি ওয়ার্ডে/ইউনিয়নে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় তাহলে কোনো জনপ্রতিনিধি প্রধানমন্ত্রীর এই ঈদ উপহার বণ্টনে দুর্নীতি করতে সাহস পাবেন না। তখন জনগণের কাছে সরকারের দেওয়া সব প্রণোদনা এবং সহায়তা সুষম বণ্টনে স্বচ্ছতা থাকবে।

পাশাপাশি সফটওয়্যারের মাধ্যমে ডাটাবেইজ করে প্রতিদিন কত জনকে এই উপহার প্রদান করা হয়েছে তা সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে। তাহলে সরকারের প্রতিটি অর্জন প্রশংসনীয় থেকে আরও প্রশংসনীয় হবে।

লেখক : ভাইস চেয়ারম্যান, সৃষ্টি হিউম্যান রাইটস সোসাইটি