আজ-  ,
basic-bank
সংবাদ শিরোনাম :

রোনাল্ডোর গোলের অনন্য কীর্তি

আগের ম্যাচে রুড ভ্যান নিস্টেলরুয়ের রেকর্ড ভেঙে গড়েছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১০ ম্যাচে গোলের অনন্য কীর্তি। এবার নিজেকেই ছাড়িয়ে যাওয়ার হাতছানি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সামনে।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটের দ্বিতীয় লেগে আজ বার্নাব্যুতে জুভেন্টাসকে আতিথ্য দেবে রিয়াল মাদ্রিদ। গত সপ্তাহে তুরিনে প্রথম লেগ ৩-০ গোলে জিতে সেমিফাইনালে কার্যত এক পা দিয়েই রেখেছে রিয়াল। তিন গোলের ব্যবধান ঘুচিয়ে ইউরো স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে জুভেন্টাসকে এখন অলৌকিক কিছু করে দেখাতে হবে।

কিন্তু বার্নাব্যুতে তাদের রূপকথার প্রত্যাবর্তনের স্বপ্ন একাই গুঁড়িয়ে দিতে পারেন রোনাল্ডো। ৩৩ বছর বয়সেও ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে আছেন রিয়ালের পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। এ বছর এখন পর্যন্ত রিয়ালের জার্সিতে ১৫ ম্যাচে করেছেন ২৪ গোল।

প্রথম লেগে জুভেন্টাস দেখেছে তার সত্যিকারের রুদ্ররূপ। নিজে জোড়া গোল করার পাশাপাশি দলের অন্য গোলটিও বানিয়ে দিয়েছিলেন রোনাল্ডো। এর মধ্যে অবিশ্বাস্য বাইসাইকেল কিকে করা রোনাল্ডোর দ্বিতীয় গোলটি ঝড় তুলেছিল গোটা ফুটবল বিশ্বে।

মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে জুভেন্টাস সমর্থকরা পর্যন্ত উঠে দাঁড়িয়ে কুর্নিশ জানিয়েছিল পর্তুগিজ জাদুকরকে। এবার বার্নাব্যুতে নতুন কী চমক নিয়ে হাজির হন রোনাল্ডো, সেটাই দেখার।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা এবারের আসরে এখন পর্যন্ত নয় ম্যাচে করেছেন ১৪ গোল। ইউরো মঞ্চে এক মৌসুমে নিজেরই গড়া সর্বোচ্চ ১৭ গোলের রেকর্ড ছুঁতে আর মাত্র তিনটি গোল প্রয়োজন রোনাল্ডোর।

২০১৩-১৪ মৌসুমে রেকর্ডটি গড়েছিলেন। ২০১৫-১৬ মৌসুমে করেছিলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৬ গোল। দু’বারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এবার ১৭ গোলের রেকর্ড ভেঙে দিতেই পারেন রোনাল্ডো।

আজ অভাবনীয় কিছু না ঘটলে রিয়ালের সেমিফাইনাল নিশ্চিত। সেক্ষেত্রে নিজের রেকর্ড ভাঙার জন্য আরও অন্তত তিনটি ম্যাচ পাচ্ছেন সিআর সেভেন। যে আগুনে ফর্মে আছেন তাতে হ্যাটট্রিক দিয়ে আজই নিজের কীর্তি ছুঁয়ে ফেলতে পারেন।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এ মৌসুমে এরই মধ্যে ৪০ গোল করা রোনাল্ডোকে ঠেকাতে না পারলে কোনো আশাই নেই জুভেন্টাসের। গত রোববার ১-১ গোলে ড্র হওয়া মাদ্রিদ ডার্বিতেও গোল পেয়েছেন রোনাল্ডো।

রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান অবশ্য আÍতুুষ্টির ফাঁদে পা দিতে নারাজ, ‘সবাই ভাবছে আমরা সেমিফাইনালে চলে গেছি। কিন্তু এমন ভাবনা আমাদের মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে হবে। আমরা খুব ভালো করেই জানি, বুধবার আমাদের জন্য আরেকটি কঠিন পরীক্ষা অপেক্ষা করছে।’

ওদিকে অসম্ভবের সামনে দাঁড়িয়েও আশা হারাচ্ছেন না জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি, ‘আমরা আমাদের সামর্থ্যরে শেষবিন্দু পর্যন্ত দিয়ে চেষ্টা করব। আমাদের অবশ্যই মাদ্রিদে নিখুঁত একটি ম্যাচ খেলতে হবে। তারপর দেখা যাবে কী ঘটে।’

জুভেন্টাসের তুলনায় সেভিয়ার সমীকরণ কিছুটা সহজ। ফিরতি ম্যাচে আজ বায়ার্ন মিউনিখের মাঠে ২-০ বা ৩-২ গোলে জিতলেই সেমিফাইনালে চলে যাবে স্প্যানিশ ক্লাবটি।

কিন্তু জার্মানিতে এসে বায়ার্নকে হারানো মুখের কথা নয়। সুযোগটা সেভিয়া প্রথম লেগেই হারিয়েছে। ঘরের মাঠে শুরুতে এগিয়ে গিয়েও নিজেদের ভুলে তারা হেরেছিল ২-১ গোলে।

ভাগ্যপ্রসূত ওই জয়ের পর বুন্দেসলিগায় টানা ষষ্ঠ শিরোপা নিশ্চিত করে বায়ার্ন আজ ঘরের মাঠে নামবে নির্ভার হয়ে। হার এড়াতে পারলেই সেমিফাইনালে চলে যাবে বাভারিয়ানরা। ট্রেবল জয়ের হাতছানিতে আরও উজ্জীবিত মুলার, লেওয়ানডোস্কিরা। এএফপি/ওয়েবসাইট।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।