আজ-  ,
basic-bank
সংবাদ শিরোনাম :

বাজারে আসছে ভাঁজ করা যায় হেলমেট

মোটরসাইকেল বা বাইসাইকেল যেটাই চালানো হোক না কেন হেলমেট পরিধান করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইদানিং হেলমেট পরিধানের ওপর গুরুত্ব আরোপ করতে ডিএমপির ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ) পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে নানা পদক্ষেপ। এতো কিছুর পরেও কিন্তু হেলমেট পরিধানের ব্যাপারে আমাদের উদাসিনতা আছে। বিশেষ করে আরোহীরা ঝামেলা বা হেলমেট বহনের ঝামেলার জন্য হেলমেট সঙ্গে রাখতে চাননা।

এজন্য এবার এমন এক বাইসাইকেল হেলমেট বাজারে আসতে যাচ্ছে যেটা ক্যাপের মতো করে ভাঁজ করা যাবে। এমনকি ভরে রাখা যাবে আপনার ব্যাকপ্যাক কিংবা পানির পুরোনো ফ্লাস্কেও! দেখতে বেসবল ক্যাপের মতো হলেও এর কার্যকারিতা কোনো হেলমেটের চেয়ে কম না। এমনকি তা আমেরিকার কনজ্যুমার প্রোডাক্ট সেফটি কমিশনের গাইডলাইন এবং কমপ্লায়েন্স মেনেই বানানো হয়েছে। টেস্ট করা হয়েছে ল্যাবে এর কার্যকারিতা।

হেলমেটটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান পার্ক অ্যান্ড ডায়মন্ড যদিও এখনো তহবিল বা ফান্ড সংগ্রহ করছে এই হেলমেটের বাণিজ্যিক উৎপাদনের জন্য। তবে তারা আশাবাদী চমকপ্রদ এই নিরাপদ হেলমেট মানুষের অনেক উপকারে আসবে। বিশেষ করে যারা হেলমেট বহনকে ঝামেলা মনে করে।

প্রতিষ্ঠানটির সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রেসিডেন্ট ডেভিড হল বলেন, ‘আমার বোন ২০১৫ সালে গাড়ির সঙ্গে সাইকেল দুর্ঘটনায় আঘাত পেয়ে চার মাস কোমায় ছিল। যদিও সে এখন ভালো। এরপরেই এমন নিরাপদ কিছু উদ্ভাবনের চিন্তা মাথায় আসে।’

ডেভিড হলের উদ্ভাবিত হেলমেট আসলেই দেখতে সুন্দর ও ভাঁজ করা যোগ্য। যা সহজেই বহন করা যায় এবং দেখতে দৃষ্টিনন্দন। ফলে এ ধরনের হেলমেট বাজারে আসলে মানুষ নিরাপত্তার ব্যাপারে আরো সচেতন হবে বলে আশা করা যায়। ব্র“কলিন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান পার্ক অ্যান্ড ডায়মন্ড আপাতত তহবিল গঠন করছে ইন্ডিগোগো’র ব্যানারে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।