‘আমার যা পরতে ভালো লাগে আমি তাই পর‘ বললেন এ আর রহমানের মেয়ে

অস্কার জয়ী সংগীতপরিচালক এ আর রহমান। ১০ বছর আগে বলিউডের ‘স্লামডগ মিলিওনেয়ার’ ছবির ‘জয় হো’ গানটির জন্য শ্রেষ্ঠ সংগীতপরিচালক হিসেবে জন্য অস্কার পেয়েছিলেন তিনি।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ‘স্লামডগ মিলিওনেয়ার’ ছবির অস্কার পাওয়ার এক দশক পূর্তি উপলক্ষে সম্প্রতি মুম্বাইয়ে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন বলিউড অভিনেতা অনিল কাপুর, ‘স্লামডগ মিলিওনেয়ার’ ছবির কলাকুশলী, এ আর রহমান ও এ সংগীতশিল্পীর পরিবারের বেশ কয়েজন সদস্যসহ বিনোদন জগতের অনেকেই।

এদিন অনুষ্ঠানের মঞ্চে স্লামডগ মিলিওনেয়ার ও অস্কার বিষয়ক বিভিন্ন কথা বলেন রহমান। এ সময় সংগীতশিল্পী বাবার সঙ্গে মঞ্চে উঠে কথা বলেন রহমানের মেয়ে খাতিজা রহমান। অনুষ্ঠানে খাতিজার পরনে ছিল বাঙালি শাড়ি ও নেকাব। সেদিন অনেকেই খাতিজার পোশাককে বাঁকা চোখে দেখেন। এর পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে এ আর রহমানকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

অনেকেই রহমানকে কটাক্ষ করেন বলেন, ‘কেমন করে এতো ছোট একটি মেয়েকে জোর পূর্বক নেকাব পরিয়ে রেখেছেন এ সংগীতশিল্পী।’ এক ব্যক্তি টুইট করে লিখেন, ‘একজন প্রগতিশীল সংগীতশিল্পীর কাছে এমনটা আশা করিনি।’ আরেকজন টুইট করে লিখেন, ‘মেয়েকে এভাবে আপাদমস্তক না ঢাকলে পারতেন তিনি।’

বাবাকে বিতর্কিত হতে দেখে, এ আর রহমানের মেয়ে মুখ খুললেন। ৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার খাতিজা তার ফেসবুক পোস্টে লিখেন, ‘সম্প্রতি মঞ্চে বাবার সঙ্গে আমাকে দেখে অনেকেই ব্যাপক সমালোচনা করেছেন। এতো বেশি সমালোচিত হতে হবে যা আমি নিজেও কখনো কল্পনা করিনি। যাই হোক, অনেকেই মন্তব্য করেছিলেন যে, আমার বাবা আমাকে এমন পোশাক পরতে বাধ্য করেছেন। কিন্তু ব্যাপারটি আসলে মোটেও তা নয়। যারা ভুল বুঝেছেন তাদের বলতে চাই, আপাদমস্তক ঢাকা পোশাক পরতে আমি পছন্দ করি। আমি কী পরবো, না পরবো তা সম্পূর্ণ আমার স্বাধীনতা। আমার যা পরতে ভালো লাগে আমি তাই পরি। নিজের পোশাক পছন্দ করার যথেষ্ট বয়স আমার হয়েছেন। এমনটা ভাবা ভুলে, যে মা-বাবাই আমার পোশাক নির্ধারণ করে দেন। তবে আমার পছন্দের প্রতি মা-বাবা দুজনেই ভীষণ শ্রদ্ধাশীল। আমার মনে হয়ে নারী কিংবা- পুরুষ, প্রত্যেক মানুষের নিজের পোশাক নির্বাচনে ব্যাক্তি স্বাধীনতা রয়েছে। যেমন, আমি কী পরবো তা আমার স্বাধীনতা। তাই বলছি, দয়া করে পরিস্থিতি না বুঝে ভুলভাবে মানুষকে বিচার করবেন না।’
খাতিজা, রহিমা, নিতা আম্বানি ও সায়ারা বানু। ছবি: সংগৃহীত

এর পর এ আর রহমান একটি ছবি টুইট করেন। ছবিটি একটি অনুষ্ঠানে তোলা। তাতে এ আর রহমানের স্ত্রী সায়ারা বানুর সঙ্গে তার দুই মেয়ে খাতিজা ও রহিমাকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এ আর রহমানের পরিবারের সঙ্গে আরও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় ভারতের ধনকুবের নিতা আম্বানিকে। এ ছবিতে এ আর রহমানের স্ত্রী সায়ারা মুখে নাকাব না থাকলেও মেয়ে খাতিজা ঠিকই নেকাব পরে ছিলেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: সৃষ্টি বার্তা থেকে কপি করা যাবে না।
0 Shares
Share via
Copy link
Powered by Social Snap