আজ-  ,
basic-bank
সংবাদ শিরোনাম :

জজকোর্টে হিরো আলমের জামিন নামঞ্জুর

জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন পাননি আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম। সোমবার (১১ মার্চ) বিকালে তার পক্ষে বগুড়া বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম জামিন চাইলে জেলা ও দায়রা জজ নরেশ চন্দ্র সরকার শুনানি শেষে নামঞ্জুর করেন। যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী নির্যাতন মামলায় গ্রেফতার ও কারারুদ্ধ রয়েছেন হিরো আলম।

এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম জানান, জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হিরো আলমের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন প্রার্থনা করেছিলেন। বিচারক নামঞ্জুর করেছেন। শিগগিরই এ ব্যাপারে হাইকোর্টে আবেদন করা হবে।

পুলিশ জানায়, যৌতুক না পেয়ে হিরো আলম গত ৫ মার্চ সন্ধ্যায় তার স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সুমিকে মারপিট করেন। শ্বশুর সাইফুল ইসলাম মেয়েকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এছাড়া পরদিন সদর থানায় হিরো আলমের বিরুদ্ধে মামলা করলে পুলিশ তাকে থানায় ডেকে গ্রেফতার করে।

৭ মার্চ হিরো আলমকে বগুড়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। তার পক্ষে অ্যাডভোকেট মাসুদুর রহমান স্বপন জামিন চাইলে শুনানি শেষে বিচারক আহম্মেদ শাহরিয়ার তারিক জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এরপর থেকে হিরো আলম বগুড়া কারাগারে রয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে সেলে রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের মৃত আহম্মদের ছেলে হিরো আলম পেশায় ক্যাবল অপারেটর বা ডিশ ব্যবসায়ী। পরবর্তীতে মিউজিক ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন। গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন। নির্বাচন বর্জন করেন। তার এ প্রার্থিতা নিয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা হয়।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।