আজ-  ,
basic-bank
সংবাদ শিরোনাম :

বগুড়া-৬ উপনির্বাচন ; আ’লীগ বিএনপিসহ ১১ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপনির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন বৃহস্পতিবার বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টিসহ ১১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তবে জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁনকে দলের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেয়া হলেও ব্যক্তিগত কারণ দিখিয়ে তিনি ফরম তোলেননি।

গতকাল নেতাকর্মীদের নিয়ে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএমটি জামান নিকেতা, বিএনপির সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বগুড়া পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব, জেলার সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ওমর, বাংলাদেশ কংগ্রেসের জেলা আহ্বায়ক ড. মনসুর রহমান, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মুফতি রফিকুল ইসলাম এবং স্বতন্ত্র জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ কবির আহম্মেদ মিঠু, মো. মিনহাজ, জাফর আলী ও আবুল হাসান মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

রিটার্নিং অফিসার সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার এসএস জাকির হোসেন মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন। এ উপলক্ষে শহরের খান্দার এলাকায় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী এসএমটি জামান নিকেতা বলেন, এ আসনে বিএনপি বারবার বহিরাগতদের নির্বাচিত করায় বগুড়াবাসী তাদের ধারে-কাছেও যেতে পারেননি। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেলেও তিনি শপথ না নিয়ে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। তাই জনগণ এবার নৌকায় ভোট দেবেন। বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেছেন, কৌশলগত কারণেই উপনির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করছে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলা থেকে উদ্ধার করে দেশে ফেরত আনা, গণতন্ত্র এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্যই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। বেগম জিয়া কেন মনোনয়নপত্রে সই করলেন না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মনোনয়নের সময় স্কাইপিতে যখন তারেক রহমানের সঙ্গে কথা হয়, তখন খালেদা জিয়ার বিষয়টি তিনি বলেননি।

আমরাই যখন তাকে মনোনয়ন দেয়ার কথা বলি- তখন তিনি বলেন, ‘ঠিক আছে আপনাদের সন্তুষ্টির জন্য মনোনয়ন ওঠাতে পারেন।’ এ কারণেই খালেদা জিয়ার মনোনয়ন উঠানো হয়েছিল। অপর চারজনের মধ্যে তিনজন মনোনয়ন জমা দিলেও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন কেন মনোনয়নপত্র উত্তোলন করেননি, এ প্রশ্নের কোনো জবাব তিনি দেননি। তবে এ প্রসঙ্গে চাঁন বলেন, দল মনোনয়ন দিয়েছিল কিন্তু ব্যক্তিগত কারণে মনোনয়নপত্র তুলিনি। বগুড়া জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ জানান, ১৩ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন।

এর মধ্যে খালেদা জিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক এমপি সাইফুর রহমান রাজ ভাণ্ডারী মনোনয়ন জমা দেননি। ২৭ মে মনোনয়নপত্র বাছাই, ৩ জুন প্রত্যাহার এবং ৪ জুন প্রতীক বরাদ্দ হবে। ২৪ জুন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট হবে। সূত্র; যুগান্তর

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।