আজ-  ,
basic-bank
সংবাদ শিরোনাম :

টাইম স্কয়ারে হামলায় অভিযুক্ত বাংলাদেশি আশিকুল কারাগারে

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের টাইম স্কয়ারে হামলার পরিকল্পনাকারী হিসেবে অভিযুক্ত গ্রেফতারকৃত বাংলাদেশি তরুণ আশিকুল আলমকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার (৭ জুন) আশিকুলকে ব্রুকলিনের ফেডারেল কোর্টে হাজির করা হলে বিচারক তার জামিন আবেদন নাকচ করে দেন। এদিকে, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে আশিকুলের জড়িতের ঘটনায় বাংলাদেশিদের মধ্যে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।
নিউইয়র্কের টাইম স্কয়ারে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে গ্রেফতার বাংলাদেশি তরুণ আশিকুল আলমকে আদালতে হাজির করার সময় তার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় তারা সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের জবাব দেননি।

আদালতে আশিকুলের আইনজীবী দুই লাখ ডলার নিরাপত্তা বন্ডের মাধ্যমে তার জামিন চাইলে বিচারক তা নাকচ করে দেন। এদিকে শুক্রবার দুপুরে বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসে আশিকুলের এপার্টমেন্টে গিয়ে দেখা যায়, সর্বত্রই নিস্তব্ধতা। জ্যাকসন হাইটসের সিংহ মার্কা বিল্ডিংয়ের বাসিন্দাদের মাঝে চাপা আতঙ্ক।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ‘২১ জন এফবিআই আসছিলে উনাকে ধরে নিয়ে গেছে। যাওয়ার সময় ল্যাপটপ মোবাইল নিয়ে গেছে।’

আদালত ও পুলিশ জানায়, আশিকুল দীর্ঘদিন এফবিআইয়ের নজরদারিতে ছিল। সে এফবিআইয়ের এজেন্টের কাছ থেকেই দুটি পিস্তল কেনে এবং পেনসিলভানিয়া থেকে বন্দুক চালানোর প্রশিক্ষণ নেয়। বৃহস্পতিবার এফবিআই, জয়েন্ট টেররিজম টাস্কফোর্স, আন্ডার কাভার এজেন্ট ও নিউইয়র্ক পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।
নাফিজ আকাইদুল্লাহ সর্বশেষ আশিকুল আলমের সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনার এই ঘটনায় বাংলাদেশি কমিউনিটিতে ক্ষোভের পাশাপাশি উদ্বেগ উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।
প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলেন, এখানে আমরা সবার কাছে প্রশংসিত, সম্মানিত। অল্প বয়সী ছেলেরা কেনো এ ধরণের কাজ করে আমরা বুঝতে পারি না।
বাইশ বছর বয়সী আশিকুলের বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র রাখা, টাইমস স্কয়ারে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সংঘটিত করে পুলিশ ও নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ওপর হামলার পরিকল্পনার অভিযোগ আনা হয়েছে।

আগামী ২১ জুন মামলার শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন আদালত।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।