ট্রলকারীদের ‘সাহস’ থাকলে সামনে আসতে বললেন সুজন

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবির বর্তমান পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রল করেন অনেকে।

নানা ইস্যুতে তাকে নিয়ে ফেসবুক-টুইটারে ঠাট্টা-বিদ্রূপ হয়।

ট্রল ও নেতিবাচক মন্তব্য নিয়ে এতদিন ধরে মুখ খুলেননি খালেদ মাহমুদ।

এবার ট্রলকারীদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। উপহাসকারীদের সরাসরি অভদ্র, অশিক্ষিত বললেন এই সাবেক তারকা।

সুজনের মতে, যারা বেকার, কাজকর্ম নেই তারাই এসব ট্রল করেন।

বুধবার ক্রিকেটভিত্তিক এক গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘আমি মনে করি যারা আমাকে নিয়ে ট্রল করে তারা একদম অশিক্ষিত। তাদের ক্রিকেট জ্ঞান বলতে কিছু নেই। মূলত যারা আমাদের চিনে না, আমাদের কাজ সম্মন্ধে জানে না, তারাই এসব হীন কাজ করে। আমি তো বলব এরা অশিক্ষিত হয়।

কাজকর্মহীন অলসরাই এসব ট্রলে মেতে থাকেন বলে ধারণা সুজনের। বলেন, ‘একজন কাজ করা মানুষের এসব করার সময় নেই। ফালতু, মিথ্যা কথা, মানুষকে নিয়ে ট্রল বানায় যারা তারা বেকার। তারা এগুলো করেই মানুষকে ছোট করে। আমি মনে করি, তাদের পরিবারও ভালো না। কোনো ভদ্র পরিবারের ছেলে এরকম কথা লিখতে পারে না, এভাবে ট্রল করতে পারে না। অভদ্র, অশিক্ষিত পরিবার থেকেই এরা আসে। আমি সরাসরিই বললাম আজকে। যদি তাদের সাহস থাকে আমার সামনে এসে কথা বলুক।’

সুজন আরও বলেন, ‘ট্রল করার মতো সময় আমার নেই। আমাকে সারাদিন কাজ করতে হয়। আমি অবশ্য এসব ট্রলে চাপ নিই না। কারণ আমি ঘুম থেকে উঠি আর রাতে শোয়া পর্যন্ত ক্রিকেট নিয়েই থাকি। আমি তো আর কিছু করি না। ক্রিকেট ছাড়া আর কিছুই নেই আমার। তা হলে মানুষ আমাকে নিয়ে ট্রল করবে কেন? আমি নিজের যোগ্যতায় কাজ করি। আমি কারও দয়ায় বিসিবিতে আসিনি। নির্বাচন করে জিতে এসেছি। এটিও মনে হয় ওরা জানে না। তাই আমাকে নিয়ে যা খুশি লিখুক, আমি এসব গায়ে মাখি না, একদমই না।’

একসময়ের জাতীয় দলের অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজনকে অলরাউন্ডার ধরা হয়। টেস্ট ক্যারিয়ারে ১২ ম্যাচ খেলে তিনি রান করেছেন ২৬৬ ও উইকেট শিকার করেছেন ১৩টি। ৭৭ ওয়ানডে খেলে তার সংগ্রহ ৯৯১ রান ও ৬৭টি উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *