ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে শিশুর কোমরে লাথি, ভাঙল হাড়

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে পাকা আম দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এক শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সাইদুল ইসলাম স্বপন নামে এক প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে লাথি মেরে শিশুটির কোমরের হাড় ভেঙে ফেলেছেন তিনি। তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে বাড়ির উঠানে বন্ধুদের সঙ্গে খেলছিল ভুক্তভোগী শিশুটি। ওই সময় প্রতিবেশী সাইদুল ইসলাম স্বপন তাকে পাকা আম দেয়ার কথা বলে বাড়িতে নিয়ে যান। পরে ঘরের ভেতর শিশুটির মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। ওই সময় ভুক্তভোগী চিৎকার করায় ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে তার কোমরে লাথি দেন স্বপন। এতে শিশুটির কোমরের হাড় ভেঙে যায়। ঘটনা জানাজানি হলে শিশুটির পরিবারকে হুমকিও দেন তিনি।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, হুমকির কারণে শুক্রবার শিশুটিকে হাসপাতালে নেয়া সম্ভব হয়নি। পরদিন গোপনে তাকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রোববার রাতে শিশুটিকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের আরএমও ডা. হারুন-অর-রশিদ বলেন, ভুক্তভোগী শিশুটি কোমরে আঘাত পেয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তার কোমরের একটি হাড় ভেঙে গেছে। শিশুটিকে হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসা দেয়া হবে।

সোমবার দুপুরে সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল্লাহিল জামান বলেন, রোববার রাতে শিশুটির পরিবারের লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মামলা নেয়া হয়েছে। বর্তমানে শিশুটিকে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরো পড়ুন