টুজি আরও কিছুদিন থাকবে, থ্রিজি মারা গেছে : মোস্তাফা জব্বার

বাংলাদেশ ফোরজির যুগে পৌঁছে গেছে জানিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, “টুজি আরও কিছুদিন থাকবে, থ্রিজি মারা গেছে।”

রবিবার (২৯ মে) সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস-২০২২ উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, “২০১৮ সালে আমরা স্পেকট্রাম (তরঙ্গ) নিলাম করেছিলাম। সেটা ছিল ফোরজির জন্য। সেটার অগ্রগতি কিছুদিন আটকা ছিল করোনার কারণে। কিন্তু আমি টেলকো কোম্পানিগুলোকে অনুরোধ করেছিলাম, আপনারা এখন এটা রোল অন করেন। এখন আমার কাছে যা তথ্য আছে, সেটা অনুযায়ী দেশের ৯৮% জায়গায় ফোরজি বিস্তার লাভ করেছে। এটা অসাধারণ অর্জন বলে আমি মনে করি। এর জন্য টেলকো কোম্পানিগুলোকে বিশেষ ধন্যবাদ জানাই।”

মন্ত্রী বলেন, “আমরা সরকারি খাতে সাবমেরিন কার্যক্রমের বিস্তৃতি ঘটাতে পেরেছি এবং সেটার যথাসাধ্য ব্যবহার করার চেষ্টা করছি। কিন্তু আমরা কেবল সরকারি কার্যক্রমেই জাতির অগ্রগতি সীমাবদ্ধ রাখব না। সে কারণে বেসরকারি পর্যায়ে সাবমেরিন সংযোগ চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে বেসরকারি খাত আইসিটি লাইসেন্স নিয়ে বাংলাদেশে ১৩০০ জিবির মতো ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করছে। আমাদের দুইটা সাবমেরিন থেকে সৌদি টেলিকমকে ৬০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ দিচ্ছি। আরও এক টেরাবাইটের জন্য তারা দেনদরবার করছে। সৌদির মতো মালয়েশিয়াও ব্যান্ডউইথ নেওয়ার জন্য দাঁড়িয়ে আছে।”

বয়স্ক ব্যক্তিদের ডিজিটাল সেবা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “বয়স্ক মানুষদের জন্য ডিজিটাল সেবা সহজ ও সাবলীল করতে আমরা নানা ধরনের পদক্ষেপ হাতে নিয়েছি। আমাদের দেশের একটি বড় অংশ এখন বার্ধক্যে পৌঁছে গেছে এবং তারা বেশির ভাগই ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের বাইরে। এ জন্য তারা যেন ডিজিটাল সেবাগুলো সহজে নিতে পারে, তারই প্রয়াস চালাচ্ছি আমার।”

আলোচনা সভায় লিখিত বক্তব্যে টেলিকমিউনিকেশন খাতের উন্নয়ন কার্যক্রমের বিবরণ তুলে ধরেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর শিকদার।

আরো পড়ুন
error: সৃষ্টি বার্তা থেকে কপি করা যাবে না।