গাইবান্ধায় বন্যায় ২১ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত

গাইবান্ধার ঘাঘট ও ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে গাইবান্ধায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। জেলার চার উপজেলায় ২১ হাজারের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া বন্ধ রয়েছে ১২৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

চার উপজেলায় বন্যার্তদের ৮০ টন চাল ও নগদ ৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। গবাদি পশু সংকটে থাকার কারণে গো-খাদ্য বাবদ ১৬ লাখ টাকা ও শিশু খাদ্য বাবদ ১৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ১১০ প্যাকেট শুকনো খাবার দেওয়া হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানা গেছে, ফুলছড়ি পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ৫৫ সেন্টিমিটার ও গাইবান্ধা সদর পয়েন্টে ঘাঘটের পানি বিপৎসীমার ২৮সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গাইবান্ধা জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এসএম ফয়েজ উদ্দিন জানান, বন্য পরিস্থিতি ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে। এ পর্যন্ত ২১ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে সহায়তা প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু রায়হান জানান, ব্রহ্মপুত্র ও ঘাঘট নদের পানি এখনো বিপৎসীমার ওপরে রয়েছে। তবে দুই একদিনের মধ্যে পানি কমে যাওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে।

আরো পড়ুন
error: সৃষ্টি বার্তা থেকে কপি করা যাবে না।