সদর হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

গাইবান্ধায় ভুল চিকিৎসায় ওমর উদ্দিন (৬৬) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (১৩ জুলাই) সকালে জেলা সদর হাসপাতালের সামনে ‘ঢাকা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে’ এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর থেকে ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষ-চিকিৎসক গা ঢাকা দিয়েছেন।
এ নিয়ে বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত উত্তেজিত নিহতের স্বজনসহ স্থানীয়রা সেখানে ভিড় করতে থাকেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের স্বজনরা জানান, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বল্লমঝাড় ইউনিয়নের মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত নয়ন শেখের ছেলে ওমর উদ্দিন মঙ্গলবার রাত ৩টার অসুস্থ হয়ে পড়েন। বুধবার সকাল ৭টায় গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে তাকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়। সেখানে চিকিৎসক তার রক্তসহ বিভিন্ন পরীক্ষা করার জন্য পরামর্শ দেন। তখন তারা সকাল ৮টার দিকে ঢাকা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যায়। ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কর্তব্যরত চিকিৎসক রোগীর রক্তসহ বিভিন্ন উপাত্ত সংগ্রহ করে। পরে রোগীকে একটি ইনজেকশন পুশ করে স্যালাইন দেয়। এরপর ওমর উদ্দিন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। মৃত্যুর বিষয়টি জানার পর ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষ এবং ওই চিকিৎসক গা ঢাকা দেয়। এ নিয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের স্টাফদের সাথে রোগীর স্বজনদের বাগ-বিতণ্ডা শুরু হয়। এই মৃত্যুর খবরটি এলাকায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সরকারি সংস্থার লোকজন ছুটে আসে।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুদুর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসকদের না পেয়ে নিহতের স্বজনদের থানায় নিয়ে আসেন।

তিনি আরও জানান, এ ব্যাপারে নিহতের স্বজনরা কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ করলে ঢাকা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরো পড়ুন