কিডনি বিক্রির টাকা হাতিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীর গোপন বিয়ে, স্বামীর আত্মহত্যা

নিজের কিডনি বিক্রি করে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তিন লাখ টাকা দিয়েছিলেন স্বামী আতাউর রহমান (৪০)। সেই টাকা হাতিয়ে নিয়ে আতাউরের দ্বিতীয় স্ত্রীও গোপনে আরেকটি বিয়ে করেছেন। এমন খবর শুনে অভিমানে বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা উপজেলা সদরের লাঙ্গলঝাড়া গ্রামে এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত আতাউর রহমান উপজেলার আইচপাড়া গ্রামের প্রয়াত লতিফ সরদারের ছেলে।

আতাউরের মা জাহানারা খাতুন জানান, উপজেলার মুরারীকাটি গ্রামের আয়ুব আলীর মেয়ে মমতাজ খাতুনকে বিয়ে করে আতাউর। তাদের দুটি কন্যা সন্তান আছে। পরে গোপনে লাঙ্গলঝাড়া গ্রামের শরিফুল ইসলামের মেয়ে রুবিনা খাতুনকে দ্বিতীয় বিয়ে করে আতাউর।

তিনি জানান, দ্বিতীয় বিয়ের পর ভারতে গিয়ে একটি কিডনি বিক্রি করে তিন লাখ টাকা স্ত্রী রুবিনাকে দেয় আতাউর। পরে ওই টাকা পেয়ে রুবিনা আতাউরকে তালাক দিয়ে অন্য একজকে গোপনে বিয়ে করে। এই খবর শোনার পর আতাউর বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করে।

আতাউরের শাশুড়ি মর্জিনা খাতুন বলেন, তার মেয়ে জামাই অন্য স্থান থেকে বিষ খেয়ে বাড়ির উঠানে এসে পড়ে। তাকে উদ্ধার করে কলারোয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে মারা যান।

কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসিরউদ্দীন মৃধা বলেন, কিডনি বিক্রি করে ওই টাকা দিয়েছিলেন দ্বিতীয় স্ত্রী রুবিনাকে। পরে রুবিনা অন্য একজনকে বিয়ে করায় অভিমানে আত্মহত্যা করে আতাউর।

এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

#ঢাকাটাইমস

আরো পড়ুন