ইলন মাস্ক আইনের ঊর্ধ্বে নন, সতর্কতা মার্কিন নিয়ন্ত্রণ সংস্থার

সম্প্রতি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার কিনেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী ও টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্ক। এরপরই তিনি কোম্পানিটির অর্ধেক কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দেন, যা এরই মধ্যে কার্যকর করা শুরু হয়েছে। তাছাড়া গুরুত্বপূর্ণ পদের অনেকে আবার চাকরি ছেড়ে দিচ্ছেন। টুইটারের শীর্ষ গোপনীয়তা ও কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তারা পদত্যাগ করার পরে মার্কিন এক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা জানিয়েছে বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। খবর বিবিসির।

দেশটির ফেডারেল ট্রেড কমিশন (এফটিসি) জানিয়েছে, টুইটারের নতুন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইলন মাস্ক আইনের ঊর্ধ্বে নন।

টেসলার প্রতিষ্ঠাতা কর্মীদের জানিয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে টুইটারের দেউলিয়া হওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়া যায় না। গত সপ্তাহ থেকে কর্মী ছাঁটাই শুরু করেন মাস্ক। মূলত এপরই কোম্পানিটিতে চরম বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়।

বৃহস্পতিবার টুইটারের ট্রাস্ট ও সেফটির প্রধান ইয়োয়েল রথ টুইটারে প্রোফাইল আপডেট করে ইঙ্গিত দেন তিনি আর ওই পদে নেই।

তাছাড়া টুইটারের প্রধান গোপনীয়তা কর্মকর্তা ড্যামিয়েন কিরান, প্রধান কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তা মারিয়ান ফোগার্টিও পদত্যাগ করেছেন। জানা গেছে, কোম্পানিটির প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা লি কিসিনারও পদত্যাগ করেছেন।

এফটিসির পাবলিক অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক ডগলাস ফারেট বলেন, গভীর উদ্বেগের সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে টুইটারের ইস্যুগুলো পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, কোনো প্রধান নির্বাহী বা কোম্পানি আইনের ঊর্ধ্বে নয় এবং কোম্পানিগুলোকে অবশ্যই আমাদের সম্মতিমূলক আদেশ অনুসরণ করতে হবে।

আরো পড়ুন