ফারদিন হত্যায় মাদকের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি: ডিবি

বুয়েট ছাত্র ফারদিন নূর পরশ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে মাদকের কোনো সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি। এ কথা জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

শনিবার (১২ নভেম্বর) রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন এ তথ্য জানান তিনি। এর আগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানিয়েছিল, ‘মাদক সংশ্লিষ্টতার’ কারণেই হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছিলেন ফারদিন।

এর আগে ফারদিন হত্যার সঙ্গে ‘মাদক সংশ্লিষ্টতার’ বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছিলেন তার বাবা কাজী নূর উদ্দিন। তিনি অভিযোগ করেন, তার ছেলেকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। আর এখন বলা হচ্ছে মাদকের কথা। তার ছেলে ধূমপানই করে না, সে মাদক কিনতে সেখানে কেন যাবে।

ফারদিনের পরিবারের দাবি, বুয়েটের কোনো শিক্ষার্থীকে মাদক সংগ্রহ করতে হলে এত দূর যেতে হয়? ঢাকা মেডিকেল কলেজ এলাকায় কোন জিনিস পাওয়া যায় না?

তবে ঠিক কী কারণে ফারদিন হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। আর হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত কাউকে গ্রেপ্তারও করা যায়নি। তবে ফারদিন রামপুরা থেকে যার সঙ্গে দেখা করতে জুরাইনে গিয়েছিলেন, তাকে শনাক্ত করা গেছে বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে ফারদিনের হত্যার ঘটনায় গত বুধবার দিবাগত রাতে তার বাবা কাজী নূর উদ্দিন রাজধানীর রামপুরা থানায় মামলা করেন। মামলায় ফারদিনের বান্ধবী আয়াতুল্লাহ বুশরার নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করা হয়। গত বৃহস্পতিবার সকালে বুশরা রামপুরার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি পাঁচ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন।

আরো পড়ুন