ভৈরবে গরম পানি ঢেলে গৃহকর্মীকে অমানবিক নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী আটক

অনলাইন ডেস্ক অনলাইন ডেস্ক

সৃষ্টিবার্তা ডটকম

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গৃহকর্মীকে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর অবস্থায় সাদিয়াকে গতকাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মারধরের পর তার হাতে গরম পানি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত গৃহকর্ত্রী ও তার স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

স্বজনরা জানান, সাত বছর আগে ভৈরব বাজারের মেহেরুন্নেছা অপির বাসায় গৃহকর্মীর কাজ নেয় সাদিয়া। বিভিন্ন সময় ছোট ছোট ভুলের জন্য মারধরের পাশাপাশি তাকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হতো। পরিবারের অভিযোগ, সোমবার সন্ধ্যায়, কাজের সময় চুড়ি ভেঙে যাওয়ায় সাদিয়াকে মারধর করে অপি ও তার স্বামী তানভীর রাফসান। এক পর্যায়ে তার হাতে গরম পানি ঢেলে দেয় অপি। রাতে পালিয়ে খালার বাসায় আশ্রয় নেয় সাদিয়া। মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় স্থানীয় এক কাউন্সিলরের সহায়তায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সাদিয়া বলেন, সারা শরীরে পিটিয়েছে। অপি আমার গলায় চাপ দিয়ে চাকু দিকে গুতিয়ে মেরেছে। কপালে কেটে রক্ত বের হচ্ছিল তারপরও আমাকে মেরেই যাচ্ছিল। গরম পানি ঢেলে দিয়েছে।
কর্তব্যরত চিকিৎসক ফেরদৌস হোসেন বলেন, সারা শরীরে লাঠির আঘাতে পিঠে, হাতে বিভিন্ন জায়গায় ইনজুরি হয়েছে।

খবর পেয়ে, হাসপাতালে গিয়ে নির্যাততার বক্তব্য গ্রহণ করে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় অপি ও তানভীরের বিরুদ্ধে মামলা করে সাদিয়ার খালা। পরে অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার রাতেই গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তদের।
ভৈরব থানার পরিদর্শক বাহালুল খাঁন বাহার বলেন, খবর পেয়ে ভিকটিমের খোঁজ নেই। পরে সব তথ্য জানতে পেরে দুজনকে আটক করি।

নির্যাতিতা সাদিয়া বেগমের বাড়ি ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার সিংগেরকান্দা গ্রামে।